বুধবার, ২৪ Jul ২০২৪, ০৭:০৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নরসিংদীতে ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের মাঝে চেক বিতরণ নরসিংদী বেলাবতে ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা,প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর. পক্ষ থেকে এমপিকে উষ্ণ সংবর্ধনা পলাশে তিন বছরের শিশু মাইশার লাস উদ্ধার আটক ৩ নরসিংদী জেলা শিবপুর উপজেলায় সরকারি ইটের সলিং রাস্তা উঠিয়ে ফেলেছে দুষ্কৃতকারীরা বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সংসদ সদস্য অকুতোভয় রাজনীতিক প্রখ্যাত সাংবাদিক কামাল হায়দার স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত এশাআতে দ্বীন নু্রানী তালিমূল কোরআন ক্যাডেট মাদ্রাসার কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে পু্রুষ্কার বিতরণ লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলাও করতে হবে……… আলহাজ্ব মোঃ সামসুল ইসলাম মোল্লা নরসিংদীর শিবপুর সাব রেজিস্ট্রার নেই ..হতাশায় গ্রাহক চিত্রশিল্পী আল-আমীনের আঁকা ছবি গুলো সংরক্ষণের প্রয়োজন
পলাশে স্বামীকে পিস্তল ঠেকিয়ে গৃহবধুকে ধর্ষণের অভিযোগ

পলাশে স্বামীকে পিস্তল ঠেকিয়ে গৃহবধুকে ধর্ষণের অভিযোগ

পলাশ (নরসিংদী ) প্রতিনিধি:

নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় স্বামীকে পিস্তলের মুখে জিম্মি করে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে পলাশের এক কাপড় ব্যবসায়ী পাপ্পু খন্দকারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আজ রোববার সকালে ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে পলাশ থানায় মামলাটি দায়ের করেন। অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকার পলাশ ভাগ্যেরপাড়া গ্রামের আব্দুল ছাত্তার খন্দকারের ছেলে। থানায় মামলা দায়ের পর থেকে অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকার পলাতক রয়েছে।

পুলিশ ও নির্যাতিত পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়, ওই গৃহবধূর স্বামী পলাশের খন্দকার ফ্যাশনের মালিক অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকারের ব্যক্তিগত গাড়ি চালক ছিল। গত কয়েক মাস ধরে বেতন না দেওয়ায় মানবেতর জীবন পাড় করতে হচ্ছিল স্ত্রীসহ ওই গাড়ী চালককে। এক পর্যায়ে টাকা চাইতে গেলে গত ২৬ অক্টোবর রাতে টাকা দেওয়ার কথা বলে গাড়ী চালক ও তার স্ত্রীকে ব্যক্তিগত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ডেকে আনে অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকার।

পরে সেখানে স্বামীকে পিস্তলের মুখে জিম্মি করে ব্যক্তিগত গাড়ীর ভিতর ওই গৃহবধূকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে পাপ্পু খন্দকার। পরে পিস্তলের ভয় দেখিয়ে ঘটনাটি কাউকে না জানানোর জন্য হুমকী দেওয়া হয়। এদিকে বিষয়টি নিয়ে প্রাণের ভয়ে কাউকে না জানালেও গত কয়েকদিন ধরে অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকার পুনরায় ওই গাড়ী চালকের স্ত্রীকে তার কাছে এনে দেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করে আসছিল। এক পর্যায়ে বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে আজ রবিবার সকালে ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে পাপ্পু খন্দকার ও তার সহযোগী শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে মামালা দায়ের করেন। ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত পাপ্পুর ভাই ঘোড়াশাল পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলম খন্দকার বলেন, এজাহারে উল্লেখিত ঘটনাস্থল খন্দকার মার্কেট দেখানো হয়েছে। উক্ত স্থান সিসি ক্যামেরার আওতাধীন। পুলিশ প্রশাসন সিসি ফুটেজ নিয়েছে। আমরা ও সিসি ফুটেজ দেখেছি। ঘটনার উল্লেখিত সময় ফুটেজে আমি মামলার বাদিনীকে দেখতে পাইনি।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ




raytahost-demo
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD