রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নরসিংদীতে মানবতা সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নরসিংদী মডেল প্রেস ক্লাব এর ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত শিবপুর উপজেলা যুবদলের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত নরসিংদীর রায়পুরায় গু*লি করে ৬০ লাখ টাকা ছিনতাই নরসিংদীতে পানিতে ডুবে দুই ভাই নিহত নরসিংদী শহরের শিক্ষাচত্বর সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু পৌর পার্কে রমজানে সাশ্রয়ী বাজারের শুভ উদ্বোধন পলাশে জোরপূর্বক মাটি বিক্রি কৃষিজমি পুকুরে পরিণত চর আড়ালিয়া(ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মাসুদা জামান নির্বাচিত ফুলকুড়ি কিন্ডার গার্টেন এর ২২ তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত উই ক্যান স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
নরসিংদী আলোকবালী নির্বাচনী সহিংসতায় নিহতের ঘটনায় মামলা

নরসিংদী আলোকবালী নির্বাচনী সহিংসতায় নিহতের ঘটনায় মামলা

নরসিংদী প্রতিনিধিঃ

নরসিংদীর চরাঞ্চল আলোকবালীতে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনজন নিহতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে প্রধান আসামি করে ৫৮ জনের নাম উল্লেখসহ আরও ১৫০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। রবিবার রাতে নিহত আমির হোসেনের চাচা স্বপন মিয়া বাদী হয়ে নরসিংদী সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

গত ৪ নভেম্বর সকালে সদর উপজেলার আলোকবালী ইউনিয়নের নেকজানপুর গ্রামে দুই ইউপি সদস্য প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। এসময় আমির হোসেন (৪৫), আশরাফুল মিয়া (২২) ও খুশি বেগম (৫০) নামে তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

মামালায় এজহারনামীয় অভিযুক্ত আসামিরা হলেন-আলোকবালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ, আলোকবালী ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কাইয়ুম, ইউপি মেম্বার প্রার্থী রিপন মোল্লা, ইমান হাসান, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল মতিন মিয়া, রুহুল আমিন, ফারুক মিয়া, ইব্রাহীম, মনসুর আলী, রুবেল মিয়া, লিয়াকত আলী, জাকারিয়া, কাউসার ও ফেরদৌস মিয়াসহ আরও ৪৩ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আলোকবালী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লাহ’র সাথে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। আগামী ১১ নভেম্বর আলোকবালী ইউনিয়ন ইউপি নির্বাচনে দুজনই মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পায় বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেন।

পরে দলীয় নেতাকর্মীদের চাপে তিনি মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। এনিয়ে অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহর সমর্থক মেম্বার প্রার্থী রিপন মোল্লা ও দীপুর সমর্থক মেম্বার প্রার্থী আবু খায়েরের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এরই জেরে ৪ নভেম্বর  উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এসময় প্রতিপক্ষের হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনজন ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। ১০ জনসহ গুলিবিদ্ধ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়।

ঘটনায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়োন করা হয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ




raytahost-demo
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD