মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নরসিংদীতে মানবতা সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নরসিংদী মডেল প্রেস ক্লাব এর ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত শিবপুর উপজেলা যুবদলের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত নরসিংদীর রায়পুরায় গু*লি করে ৬০ লাখ টাকা ছিনতাই নরসিংদীতে পানিতে ডুবে দুই ভাই নিহত নরসিংদী শহরের শিক্ষাচত্বর সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু পৌর পার্কে রমজানে সাশ্রয়ী বাজারের শুভ উদ্বোধন পলাশে জোরপূর্বক মাটি বিক্রি কৃষিজমি পুকুরে পরিণত চর আড়ালিয়া(ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মাসুদা জামান নির্বাচিত ফুলকুড়ি কিন্ডার গার্টেন এর ২২ তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত উই ক্যান স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
পলাশ ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ আজাহার খন্দকার

পলাশ ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ আজাহার খন্দকার

নিজস্ব প্রতিবেদক
পলাশ ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ আজাহার খন্দকার। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ডাঙ্গা ইউনিয়নের ডাঙ্গা গ্রামের হাজী ওয়াজেদ খন্দকারের পুত্র মোঃ আজাহার খন্দকার ষড়যন্ত্রের স্বীকার হয়ে একাধিকবার কারা নির্যাতিত হয়েছেন। এক সময় আব্দুল মঈন খানের নেতৃত্বে বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত পলাশ উপজেলার ডাঙ্গা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রতিষ্ঠায় আজাহার খন্দকারের ভূমিক ছিল অন্যতম। ছাত্র জীবন থেকেই ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন এই নেতা। ১৯৮৯-৯০ কালীগঞ্জ শ্রমিক কলেজের ছাত্র সংসদের ছাত্রলীগ প্যানেলে জি.এস নির্বাচিত হন। ১৯৯৩ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ১০ বৎসর পলাশ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন নিষ্ঠার সাথে। ২০০৩ সালে ডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কাউন্সিলের মাধ্যমে ডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন আজাহার খন্দকার। ডাঙ্গা ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠাকালে দাতা সদস্য হিসেবে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছেন তিনি। ২০১০-২০১৯ দীর্ঘ ৯ বৎসর ডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ডাঙ্গায় অনুষ্ঠিত আন্তজার্তিক ইসলামী মহাসম্মেলনের পরিচালনা কমিটির ২০০৩ সাল থেকে মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। পলাশ উপজেলা ছাত্রলীগের দায়িত্ব পালন করাসহ দুঃসময়ে পলাশ উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সংগঠক হিসেবে কাজ করেছেন আজাহার খন্দকার। প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে আজাহার খন্দকার বলেন, আওয়ামীলীগের রাজনীতি করতে গিয়ে অনেক ষড়যন্ত্রের স্বীকার হয়েছি। ১৯৯৫ সালে তৎকালীন বিএনপি সরকারের আমলে সার কেলেঙ্কারি নিয়ে ডাঙ্গা ইউনিয়নে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র বাদল খুন হয়। ঘটনার সময় আমি- আজকের প্রধানমন্ত্রী তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী জননত্রেী শেখ হাসিনার পলাশ কো-অপারেটিভ মাঠে জনসভায় থাকা সত্ত্বে ও উক্ত খুনের মামলায় কারাবরণ করতে হয়। বিএনপির দুঃশাসনের ষড়যন্ত্রে স্বীকার হয়ে ২০০৩ সালে ডাঙ্গা বাজারে ব্যাংক ডাকাতির আসামী হই। অথচ অত্যন্ত দুঃখ ও পরিতাপের বিষয় ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ডাঙ্গা ইউিনিয়ন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালন করা নেতার হাতে আজ ডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ পরিচালিত হয়। জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষনা করেছে দুর্দিনের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করবে আমার বিশ^াস জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ন্যায় বিচার করে সঠিক মূল্যায়ন করলে অবশ্যই আগামী দিন ডাঙ্গা ইউনিয়নের নৌকার দায়িত্ব পাব।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ




raytahost-demo
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD