শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪, ০৯:২৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সংসদ সদস্য অকুতোভয় রাজনীতিক প্রখ্যাত সাংবাদিক কামাল হায়দার স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত এশাআতে দ্বীন নু্রানী তালিমূল কোরআন ক্যাডেট মাদ্রাসার কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে পু্রুষ্কার বিতরণ লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলাও করতে হবে……… আলহাজ্ব মোঃ সামসুল ইসলাম মোল্লা নরসিংদীর শিবপুর সাব রেজিস্ট্রার নেই ..হতাশায় গ্রাহক চিত্রশিল্পী আল-আমীনের আঁকা ছবি গুলো সংরক্ষণের প্রয়োজন সুমন হত্যাকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার রায়পুরায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজ্বী আলী আহম্মেদ দুলু আলোচনায় শীর্ষে মনোহরদীতে স্বপন ও বেলাবতে রিটন উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত শিবপুরে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে মনোনয়ন জমা নরসিংদীর মনোহরদীতে দোকান ভাড়ার চুক্তির টাকা ফেরত চেয়ে বিপাকে ইউপি সদস্য
নরসিংদীর রায়পুরায় বিশিষ্ট কাপড় ব্যবসায়ীকে জড়িয়ে পোস্টার করায় এলাকাবাসীর তীব্র নিন্দা

নরসিংদীর রায়পুরায় বিশিষ্ট কাপড় ব্যবসায়ীকে জড়িয়ে পোস্টার করায় এলাকাবাসীর তীব্র নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নরসিংদী রায়পুরা উপজেলার আমিরগঞ্জ ইউনিয়নের নলবাটা গ্রামে বালু ব্যবসাকে কেন্দ্র করে রফিকুল গং ও গোলজার গং এর মধ্যে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে আহত গোলজার মেম্বারের পোস্টারিং-এ ব্যবসায়ীকে জড়িয়ে পোস্টার প্রচার করায় এলাকাবাসী তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছে। ঘটনার বিবরণ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত জুলাই মাসের ১০ তারিখ শুক্রবার সকাল ১১ ঘটিকায় গুলজার হোসেন গং অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হইয়া বালু ব্যবসায়ী রফিকুলের ইট, বালু ট্রলি দিয়ে ভরে নিয়ে যাচ্ছে। রফিকুলের স্ত্রী বাধা দিতে গেলে গোলজার গং এলাপাথাড়ি হামলা ও লুটপাট করে এবং এই বলে হুমকি দেয় গ্রামে ইট, বালির ব্যবসা করতে হলে গোলজারকে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দিতে হবে। এই বিষয়ে রফিকুলের স্ত্রী শেফালী বেগম নরসিংদী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন, যাহার নং- রায়পুরা সি.আর মোকদ্দমা-২০৬/২০২০। উক্ত মামলায় গোলজার জেল হাজতে যায়। গুলজার জেল হাজত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে রফিকুলের পরিবারের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ৩০ নভেম্বর পুণরায় হামলা করে। আত্মরক্ষার স্বার্থে রফিকুল পাল্টাপাল্টি হামলা করে। এতে গোলজার মেম্বার আহত হয়। আহত গোলজার মেম্বারের টেটাবিদ্ধ ছবিসহ পোস্টারিং-এ বিশিষ্ট কাপড় ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন ও মিস্টার কে জড়িয়ে সন্ত্রাসী বলে আখ্যায়িত করা হয়। এতে এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসী জানায়, দেলোয়ার হোসেন ও মিস্টার বিশিষ্ট কাপড় ব্যবসায়ী। তাদের পৈত্রিক ভিটা-বাড়ী নলবাটায় আছে কিন্তু ব্যবসায়ীক কারণে তারা ঢাকায় অবস্থান করে। বিশেষ সামাজিক অনুষ্ঠান ছাড়া তারা এলাকায় আসে না। এমনকি ঘটনার দিনও তারা এলাকায় ছিল না। অথচ একটি পক্ষ তাদের সম্মানহানি ও বিশেষ ফায়দা লুটার জন্য তাদের ছবি জড়িয়ে পোস্টারিং করেছে এবং তাদেরকে সন্ত্রাসী হিসেবে উল্লেখ করেছে। এলাকাবাসী দেলোয়ার ও মিস্টারকে জড়িয়ে পোস্টার প্রচার করায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ




raytahost-demo
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD