রবিবার, ২৩ Jun ২০২৪, ০৯:৪৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নরসিংদী জেলা শিবপুর উপজেলায় সরকারি ইটের সলিং রাস্তা উঠিয়ে ফেলেছে দুষ্কৃতকারীরা বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সংসদ সদস্য অকুতোভয় রাজনীতিক প্রখ্যাত সাংবাদিক কামাল হায়দার স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত এশাআতে দ্বীন নু্রানী তালিমূল কোরআন ক্যাডেট মাদ্রাসার কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে পু্রুষ্কার বিতরণ লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলাও করতে হবে……… আলহাজ্ব মোঃ সামসুল ইসলাম মোল্লা নরসিংদীর শিবপুর সাব রেজিস্ট্রার নেই ..হতাশায় গ্রাহক চিত্রশিল্পী আল-আমীনের আঁকা ছবি গুলো সংরক্ষণের প্রয়োজন সুমন হত্যাকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার রায়পুরায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজ্বী আলী আহম্মেদ দুলু আলোচনায় শীর্ষে মনোহরদীতে স্বপন ও বেলাবতে রিটন উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত শিবপুরে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে মনোনয়ন জমা
নরসিংদীতে টেটাঁবিদ্ধের মৃত্যুর সংবাদে হামলা ও লুটপাট

নরসিংদীতে টেটাঁবিদ্ধের মৃত্যুর সংবাদে হামলা ও লুটপাট

নরসিংদী প্রতিনিধি 
নরসিংদীতে টেটাঁবিদ্ধ হয়ে আহত হওয়ার একদিন পর জুবায়ের আহমেদ শান্ত (১৮) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৯ মার্চ) বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের অলিপুরা গ্রামে ওয়াজ মাহফিলে ডিম দিয়ে লটারি খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় সে আহত হয়। এদিকে তার মৃত্যুর খবরে সন্ধ্যায় দুই পক্ষের লোকজন আবারও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। নিহত জুবায়ের আহমেদ শান্ত (১৮) নজরপুর গ্রামের সাত্তার মিয়ার ছেলে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার নজরপুর ইউনিয়নের আলিপুরা গ্রামের একটি মাদ্রাসায় ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ওয়াজ মাহফিলের পাশে ডিম নিয়ে লটারী ধরার দোকান বসায় অলিপুরা গ্রামের কয়েকজন কিশোর। সেই লটারী কে কেন্দ্র করে ওই যুবক ও স্থানীয় কিছু কিশোরের মধ্যে ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে ঝগড়াকে কেন্দ্র করে আলিপুরা এবং নজরপুরের দুটি আলাদা পক্ষ তৈরী হয়ে দুদলই টেটা, রামদা,বল্লমসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলা করে। এসময় জুবায়ের আহমেদ শান্তর উপর টেঁটা নিয়ে হামলা করা হলে তার গলায় টেটাবিদ্ধ হয়। আহত অবস্থায় প্রথমে নরসিংদী সদর হাসপাতাল পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
এদিকে শুক্রবার বিকেলে শান্তর মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর নজরপুর গ্রামের লোকজন মাগরিবের নামাজের পরপর আলিপুরা গ্রামে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুর, নগদ টাকা ও মালামাল লুট করে। এই হামলা প্রতিহত করতে আলিপুরা গ্রামের লোকজন পুনরায় নজরপুর গ্রামের লোকজনদের ধাওয়া দেয়। শুক্রবার রাত আটটা পর্যন্ত উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। খবর পেয়ে নরসিংদী সদর থানা পুলিশ সেখানে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে।
নতুন করে সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে। যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন সাধারণ জনগণ।
শুক্রবারে হামলার স্বীকার হওয়া অলিপুর গ্রামের বিউটি বেগম (৪৭) নামে একজন বলেন, শান্ত টেটাবিদ্ধ হওয়ার একদিন পর সন্ধ্যায় খবর আসে সে মারা গেছে। এই খবর শোনার পরই মাগরিবের নামাজের পর পর আমাদের গ্রামে নজরপুরের শতাধিক লোকজন রামদা, চাপাতি, ছুরি নিয়ে হামলা করে। এসময় আমার ঘরে থাকা কিছু নগদ টাকা ও গোয়ালের একটি গরু নিয়ে যায়। আশেপাশের বাড়িঘরের নগদ টাকার পাশাপাশি স্বর্ণালংকারও লুট করে তারা।
এবিষয়ে নজরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বাদল সরকার জানান, আসলে পুরো ঘটনাটা আমারও বোধগম্য নয়। গতকাল ডিমের লটারী নিয়ে কথাকাটাকাটির জেরে মারামারি হয়েছিল । তখন শান্ত আহত হয়। কোন পক্ষ বা কার টেঁটার আঘাতে শান্ত টেটাবিদ্ধ হয় তা স্পষ্ট নয়। শান্ত মারা যাওয়ার পর শান্তর পক্ষ নজরপুর গ্রামের লোকেরা অলিপুরা গ্রামে গিয়ে হামলা চালায়। বেশকিছু মালামাল লুটের অভিযোগও পেয়েছি।
নরসিংদী সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতাউর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘বৃহস্পতিবার ওয়াজ মাহফিলে লটারী কিংবা এই ধরনের কিছু একটা নিয়ে দুইপক্ষ ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়লে শান্ত নামের এক যুবক টেটাবিদ্ধ হয়। তার মৃত্যুর পর শুক্রবার সন্ধ্যায় দুই গ্রামের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষের খবর পাওয়ার পর পরই পুলিশ সেখানে অবস্থান নেয়। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।’

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ




raytahost-demo
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD